Bengali

প্রতিদিন ১-২ ঘণ্টা কাজ করে মাসে ১৫ হাজার থেকে এক লাখ পর্যন্ত অর্থ উপার্জন করা সম্ভব!

আপনি হয়তো ভাবছেন এটা কি করে সম্ভব ? আমি বলবো এটা অবশ্যই সম্ভব। বর্তমানে ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার করে ভারত-বাংলাদেশের অনেক মানুষই এরকম পরিমানে টাকা উপার্জন করছে। কিন্তু এই যুগে যারা প্রযুক্তি গত ভাবে পিছিয়ে রয়েছে তারা কোনো দিনই একথা বিশ্বাস করবে না। আসলে তারা কূয়ার ব্যাঙ, সমূদ্রের গভীরতা এবং বিশালতার কোন ধারনাই নেই তাদের মধ্যে।

Play This Video First

কিভাবে এত টাকা উপার্জন সম্ভব ?

আমারা সবাই আজ ফেসবুক, ওয়াটসঅ্যপ, টিকটক সহ বিভিন্ন অনলাইন আ্যাপ্লিকেশন ব্যাবহার করি সবসময়। ফেসবুক প্রতি সেকেন্ডে আয় করে পাঁচ লক্ষ টাকা! অ্যামাজন প্রতি সেকেন্ডে আয় করে তিন লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা! গুগল প্রতি সেকেন্ডে আয় করে তিন লক্ষ আশি হাজার টাকা। এরকম লক্ষ লক্ষ ওয়েবসাইট এবং অ্যাপ্লিকেশন আছে পৃথিবীতে। আমরা মূলত ফেসবুক এবং গুগল এর সাহায্যে আয় করার পদ্ধতি নিয়ে সামনে আলোচনা করতে চলেছি।

আয়ের উৎস কি ?

বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা আ্যাপ্লিকেশন ব্যাবহার করলে আপনি দেখতে পাবেন সেখানে বিভিন্ন কম্পানির বিঞ্জাপনের ব্যানার প্রদর্শীত হয়। আর বিঞ্জাপনের পেছনে এক একটা কম্পানি কি পরিমান খরচ করে সেটা নিশ্চয়ই আপনি জানেন।

আর আপনার যদি এরকম একটা ওয়েবসাইট বা আ্যাপ্লিকেশন থাকে সেখান আপনি এইরকম ব্যানার লাগিয়ে টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

কত টাকা উপার্জন করা সম্ভব ?

আপনার লাগানো অ্যাডভারটাইজিং ব্যানারে একটি ক্লিক পরলে আপনি ৭ থেকে ৭০ টাকা বা তারও বেশি পেতে পারেন। আপনি যদি দিনে মাএ একশো ক্লিক ও পান তবে আপনার আয় হবে কমপক্ষে হাজার টাকা প্রতিদিন অর্থাৎ ত্রিশ হাজার টাকা এক মাসে ! যেটা খুব সহজেই সম্ভব, এবং দিন দিন তার বেড়েই চলবে। এক সময় তা এক লাখ ও অতিক্রম করে যায়।

এক্ষেত্রে সমস্যা কি থাকে ?

এক্ষেত্রে সমস্যা হল ১. প্রযুক্তি গত সমস্যা: যেমন আপনি ওয়েবসাইট বা আ্যাপ্লিকেশন বানাতে পারেন না।

২. সময়ের অভাব: আপনার সময় হয়না কারন আপনি চাকরি বা ব্যাবসা করেন বা আপনি একজন ছাত্র বা চাকরির প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাই আপনাকে অনেক পড়াশুনা করতে হয়।

কিন্তু সমস্যার মধ্যেই সমাধান থাকে। যেমন আপনার ওয়েবসাইট বা আ্যাপ্লিকেশন যদি পড়াশুনা নিয়েই হয়, তাহলে আপনার পরিক্ষার প্রস্তুতি যেমন ভালো হবে পাশাপাশি কিছু টাকাও আসবে। সুতরাং আপনি যে রকম ব্যক্তি হোন না কেন আপনার যেটা নিয়ে আছেন সেই বিষয়েই আপনার ওয়েবসাইট কাজ করতে পারবেন।

আর আমরা তৈরি করে দেব আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগ , আপনাকে সাহায্য করে যাবো যতদিন না আপনি টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

এই ব্যাবসা শুরু করতে খরচ কেমন?

যে কোন ব্যাবসার মত এই ব্যাবসাতে ইনভেস্টমেন্ট দরকার। এখানে ডোমেইন, হোস্টিং ইত্যাদি কিনতে হয় এছাড়াও ডেভেলপার এবং মার্কেটিং এর খরচ ও আছে।

হতাশ হবেন না Android ATM এক্ষেত্রে আপনাকে Jio- র মত দূর্দান্ত অফার দিচ্ছে। আমরা মাএ ৭৫০/- টাকায় আপনাকে এই সমস্ত কিছু তৈরি করে দেব ! আপনি সুধুমাত্র ফেসবুকের মত পোস্ট করবেন আর টাকা কামাবেন।
যদি আপনি ৩ মাসের মধ্যে টাকা ইনকাম করতে না পারেন আপনার সমস্ত টাকা ফেরত দিয়ে দেব আমরা।
আপনার মনে যদি কোন প্রশ্ন থাকে তবে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ করুন।